ছেলেটার শরীর খারাপ, ৫ দিন দেখিনি তাঁকে! বিধানসভায় দাঁড়িয়ে গলা বুজে এল চন্দনা বাউরির - VedasBD.com

Breaking

Friday, 9 July 2021

ছেলেটার শরীর খারাপ, ৫ দিন দেখিনি তাঁকে! বিধানসভায় দাঁড়িয়ে গলা বুজে এল চন্দনা বাউরির

Boy's body is bad, I haven't seen him for 5 days. said chandana bauri

পাঁচ দিন হল বাবুকে দেখিনি। ওঁর শরীরটা খারাপ। অধিবেশন শেষ হলেই তাড়াতাড়ি বাড়ি চলে যাব। বিধানসভার অলিন্দে দাঁড়িয়ে কথাগুলো বলছিলনে সবথেকে দরিদ্র বিধায়ক চন্দনা বাউরি। বাঁকুড়ার শালতোড়ার বিধানসভার মানুষের আশীর্বাদ নিয়ে তিনি এখন বিধায়ক। প্রথমে শহরে এসে এতকিছু দেখে ঘাবড়ে গেলেও, ধীরে ধীরে মানিয়ে নিচ্ছেন তিনি। এলাকার উন্নয়নের জন্য যেমন তিনি বিধানসভায় প্রতিটি জিনিষ বোঝার চেষ্টা করছেন, তেমনই নিজের সন্তানের জন্যও চিন্তা করছেন চন্দনা। কারণ বিগত পাঁচদিন ধরে সে কলকাতার MLA হোস্তেলে রয়েছে আর তাঁর সন্তানকেও দেখেনি সে।

ওনাকে যখন জিজ্ঞাসা করা হয় যে, বিধানসভায় ওনার কেমন লাগছে আর অভিজ্ঞতা কেমন? তখন তিনি উত্তর দেন, খুব ভালো লাগছে। চন্দনা বলেন, শ্রীরুপা দি, শুভেন্দু দা আমাকে অনেক কিছু বুঝিয়ে দিচ্ছেন, আমি ধীরে ধীরে সব শিখছি। এলাকার উন্নয়ন এবং গরিব মানুষের সমস্যার সমাধানের স্বপ্ন নিয়ে মেজদাদার গাড়ি ভাড়া করে সুদূর বাঁকুড়া থেকে বিধানসভার অধিবেশনে অংশ নেওয়ার জন্য কলকাতায় পাড়ি দিয়েছেন চন্দনা। গাড়ি ভাড়া করা ছাড়া উপায় নেই চন্দনার। তবে এই বিষয়ে তাঁর মেজদাদা তাঁকে অনেক সহযোগিতাও করছে।

বিধানসভা নির্বাচনে টিকিট পাওয়ার পর থেকেই বারবার শিরোনামে উঠে এসেছেন বিজেপির সবথেকে দরিদ্রতম প্রার্থী চন্দনা বাউরি। নিজের নির্বাচনী প্রচারে সকলের নজরও কেড়েছিলেন তিনি। এমনকি স্বয়ং মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তী ওনার হয়ে রোড শো করতে বাঁকুড়া গিয়েছিলেন। সকালে ঘুম থেকে উঠে বাড়ির কাজ সেরে পাড়ার প্রতিটি বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে প্রচার চালানো চন্দনা বাউরির প্রতি আস্থা দেখিয়েছিল শালতোড়ার মানুষ। আর তাঁদের আশীর্বাদ নিয়েই চন্দনা আজ বিধায়ক। আর এই কারণে বিজেপির প্রতি কৃতজ্ঞতায় গলা বুজে আসে চন্দনার।

প্রথমবার রাজনীতির আঙিনায় পা রাখলেও চন্দনা এটা বুঝে গিয়েছেন যে, ওনাকে এগিয়ে যেতে হলে ভালো কাজ করতে হবে। আর চন্দনা এটুকুও জানেন যে, তাঁকে শুধু শালতোড়ার মানুষই দেখছেন না, গোটা বাংলার অনেক মানুষ তাঁর দিকে তাকিয়ে আছে। অনেকেরই এখন রোল মডেল চন্দনা। তাই সে মানুষের আশা পূরণ করতে প্রতিবদ্ধ।

No comments:

Post a Comment