এত্ত টাকা মাইনে! অবাক চন্দনা বাউরী ভেবেই পাচ্ছেন না মানুষের জন্য কী কী করবেন - VedasBD.com

Breaking

Sunday, 13 June 2021

এত্ত টাকা মাইনে! অবাক চন্দনা বাউরী ভেবেই পাচ্ছেন না মানুষের জন্য কী কী করবেন

Innumerable money salary. Surprised, Chandana Baury is wondering what to do for the people.

সব অর্থেই নুন আনতে পান্তা ফুরানো সংসার চালান চন্দনা বাউড়ি এখন তিনি পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার সদস্য। ভোটে জেতার পরে শপথ নিতে এসেছিলেন বিধানসভায়। সেটাই প্রথম বার বিধানসভা দেখা। শপথ নেওয়ার সময় থেকেই তো করোনার বাড়াবাড়ি আর রাজ্যে লকডাউন পরিস্থিতি তাই আর বিধানসভায় যাওয়া হয়নি। ফলে এখনও পর্যন্ত বিধায়ক হিসেবে প্রাপ্য বেতন পাননি। জানেনও না প্রতি মাসে ঠিক কত টাকা বেতন বা ভাতা বাবদ পাবেন। সেই টাকার অঙ্কটা শোনার পরে ভেবে উঠতে পারছেন না এত টাকা কী করে খরচ করবেন। তবে মনের কথাটা বলেই ফেললেন, ‘‘কী করব এখনও ভাবতে পারছি না, কিন্তু মানুষের জন্য ভাল হয় এমন কিছুই করব অত টাকা তো আমাদের লাগবে না।

চন্দনা বাউরী রাজ্যের দরিদ্র বিধায়কদের অন্যতম তিনি। প্রার্থী হওয়ার সময় নির্বাচন কমিশনে যে হলফনামা তিনি জমা দিয়েছিলেন তাতে ৩২ হাজার টাকার মতো নগদ ছাড়া আর কিছুই সম্পত্তি নেই বলে জানিয়েছিলেন চন্দনা। শপথ নিতে এসে বিধানসভা সচিবালয় থেকে জানতে পেরেছিলেন, ১৫ মে-র পরে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। নিময় অনুযায়ী কলকাতায় স্টেট ব্যাঙ্কের নির্দিষ্ট শাখাতেই বিধায়কদের বেতন-অ্যাকাউন্ট হয়। কিন্তু লকডাউন চালু হয়ে যাওয়ায় চন্দনার আর কলকাতায় আসাই হয়নি।

টেলিফোনে কথার মধ্যেই চন্দনা জানালেন কত টাকা বেতন পাবেন তিনি সেটা জানেন না। তাই নিজেই প্রশ্ন করলেন, ‘‘কত টাকা মাইনে পাব?’’ সে কী! আপনি এখনও জানেন না? চন্দনার জবাব, ‘‘কোনও দিন এমএলএ হব তা তো ভাবিইনি। মোদীজির স্বচ্ছ ভারত কর্মসূচিতে প্রথম বিজেপি অফিসে গিয়েছিলাম। তার পর থেকেই পার্টির হয়ে কাজ করছি। আমায় প্রার্থী করা হবে ভাবিইনি। সবাই চেষ্টা করেছে বলে আমি জিতে গেছি। প্রসঙ্গত  বেতন ও বিভিন্ন ভাতা বাবদ পশ্চিমবঙ্গে এক জন বিধায়ক মাসে মোটামুটি ৮২ হাজার টাকা পান। জুন মাসের মধ্যে অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে গেলে যে দিন শপথ নিয়েছেন সে দিন থেকে হিসেব করে গোটা টাকাটা জুলাইয়ের শুরুতে পাবেন। সেটা এক লাখ টাকার বেশিই হবে। শুনেই চন্দনার অবাক গলায় প্রশ্ন, ‘‘অত্ত টাকা মাইনে পাব?

No comments:

Post a Comment