মুকুলের-দিলীপের দ্বন্দ্ব মিটিয়ে পিকে-র চাল ভেস্তে দিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অ্যাডভান্টেজ বিজেপি! - VedasBD.com

Breaking

Wednesday, 19 August 2020

মুকুলের-দিলীপের দ্বন্দ্ব মিটিয়ে পিকে-র চাল ভেস্তে দিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অ্যাডভান্টেজ বিজেপি!


দিলীপ-মুকুলের মধ্যে যে মতভেদ তৈরি হয়েছি, তা তাঁদের জুটি-বাঁধার বার্তার মধ্যেই নিহিত রয়েছে। কিন্তু এক বৈঠকেই সেই দ্বিধা-দ্বন্দ্ব মিটিয়ে দিলেন বঙ্গ বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। এতদিন অভিযোগ করা হচ্ছিল প্রশান্ত কিশোর বিভিন্ন কৌশলে মুকুল-দিলীপের দ্বন্দ্ব জিইয়ে রেখেছিলেন। পিকে-র সেই চাল ভেস্তে দিলেন কৈলাশ! রাজনৈতিক মহল মনে করছে, প্রশান্ত কিশোর মুকুল রায়কে নিষ্ক্রিয় করে রাখতে যে সমস্ত চাল চেলেছেন তাঁর টিম ও তৃণমূল নেতাদের একাংশকে দিয়ে, তাতে জল ঢেলে দিয়েছেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়।


প্রশান্ত কিশোর এতদিন যেভাবে ছড়ি ঘোরাচ্ছিলেন বিজেপি চাপে পড়ে যাচ্ছিল। অমিত শাহের দূত হয়ে রাজ্যে এসে কৈলাশ দলে ‘প্রতিপক্ষ' হয়ে ওঠা মুকুল রায় ও দিলীপ ঘোষকে এক সুতোয় বাঁধলেন। উভয়েই সম্মত হলেন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়াই করার। দিলীপের বাড়িতে গিয়ে পাশাপাশি সাংবাদিক বৈঠকও করলেন মুকুল। মিশন ২০২১-এ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন জিততে যাবতীয় দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ঝেড়ে ফেলে মুকুল-দিলীপরা জোট বাঁধলেন। একজন সুদক্ষ ভোটকৌশলী এবং সংগঠক আর অন্যজন যথার্থ অর্থেই রাস্তায় নেমে রাজনীতি করা নেতা, তাঁর নিজের কথাতেই বুকে পা দিয়ে রাজনীতি করা লোক। উভয়ের জোট সুপারহিট হলে বাংলায় বিজেপির পায়ের তলায় মাটি শক্ত হবে বলাই যায়।

মুকুল রায় তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কম্যান্ড, বিজেপিতে যোগ দিয়ে গুরুত্বের আসনে বসেছেন। আর দিলীপ ঘোষ খোদ বিজেপির রাজ্য সভাপতি। মুকুল রায় বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই উভয়ের ইগোর লড়াই শুরু হয়। ২০২১-এর আগে তা বেশি করে মাথাচাড়া দিয়েছিল। অবশেষে তাঁদের সখ্যতার সেতুবন্ধন হল। তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জোট বাঁধলেন তাঁরা।মুকুল রায়ের সঙ্গে বঙ্গ বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এবং দিলীপ ঘোষের সঙ্গে দিল্লিতে বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডা একই দিনে বৈঠক করেন। তারপরই বরফ গলে। উভয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করার বার্তা দেন বিজেপির পতাকা নিয়ে। এবং মঙ্গলবার সেই ছবিও দেখা যায়। একইসঙ্গে পাশাপাশি বসে তাঁরা ২০২১-এর রূপরেখা তৈরি করতে বৈঠক করেন। 

No comments:

Post a comment