দিল্লি হিংসার পেছনে ছিল 'আন্তর্জাতিক' শক্তি! রাজধানীকে অশান্ত করার নেপথ্যে ছিল জাকির নায়েক! - VedasBD.com

Breaking

Saturday, 4 July 2020

দিল্লি হিংসার পেছনে ছিল 'আন্তর্জাতিক' শক্তি! রাজধানীকে অশান্ত করার নেপথ্যে ছিল জাকির নায়েক!


দিল্লি হিংসার ইস্যু নিয়ে নতুন তথ্য উঠে এল জিজ্ঞাসাবাদ থেকে দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেল এই ঘটনার তদন্তে নেমেছে। তাঁদের তদন্তের রিপোর্টেই উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য।  রিপোর্টে বলা হয়েছে, দিল্লি হিংসার অন্যতম মদতদাতা খালিদ সইফির সঙ্গে ভারতে নিষিদ্ধ ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েকের সরাসরি যোগাযোগ ছিল। খালিদ সাইফ যাকে দিল্লি দাঙ্গায় যুক্ত থাকার জন্য গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তিনি জাকির নায়েকের সঙ্গে মালয়েশিয়ায় দেখা করেছিলেন। পাশাপাশি এও জানা যাচ্ছে, এই সাইফ আদতে ওমর খালিদ ছিল তাহির হুসেনের ঘনিষ্ঠ বন্ধু। দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেলের স্ট্যাটাস রিপোর্ট অনুযায়ী, সৌদি আরব থেকে আর্থিক মদদ পৌঁছে গেছে সিঙ্গাপুরের এক এনআরআই ব্যক্তির কাছে।


খালিদ সাইফের অ্যাকাউণ্টে দিল্লি দাঙ্গার জন্য সিঙ্গাপুর থেকে টাকা এসেছে। টাকা ভারতের একটি এনজিওতে পাঠানো হয়েছে যা পরিচালনা করেন ওমর খালিদ। উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে হিংসা চলাকালীন চাঁদবাগ এলাকায় আইবি আধিকারিক অঙ্কিত শর্মার হত্যাকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিলেন আরও এক বিরোধী দল আপ-এর কাউন্সিলর তাহির হুসেন। পরে তাহিরকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। সেই তাহিরকেই জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা গিয়েছিল, দিল্লি হিংশার ছক কষা হয়েছিল জানুয়ারিতেই। অভিযুক্ত আপ নেতা তাহির হুসেনের চার্জশিটে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য উঠে এসেছে। জানা গিয়েছে, একমাস আগে, ৮ জানুয়ারি তাহির দেখা করেছিলেন জেএনইউয়ের দুই প্রাক্তন ছাত্রনেতা উমর খালিদ ও খালিদ সইফির সঙ্গে।

৮ জানুয়ারি উমর খালিদ তাহিরকে বলেছিলেন, 'ট্রাম্পের সফরের সময় দিল্লিতে দাঙ্গা হবে। সেজন্য প্রস্তুত থাকুন। এহেন হিংসায় ৪৩৬টিরও বেশি অভিযোগ দায়ের হয়েছে হিংসা সম্পর্কিত ঘটনায়। এই মামলাগুলির মধ্যে ৪৫টি হল বেআইনি ভাবে অস্ত্র রাখার দায়ে। তবে এখন পরিস্থিতি সম্পূর্ণ শান্ত আছে বলে দাবি করা হয়। এই হিংসার ঘটনায় মৃতের সংখ্যা অন্তত ৫০। জখম হয়েছেন আরও ৩৫০ জন। দিল্লিতে হিংসা ছড়ানোর ঘটনায় যু্ক্ত থাকার অভিযোগে ১৪০০ জনকে গ্রেফতার বা আটক করা হয়েছিল।

No comments:

Post a comment