আক্রান্ত দিলীপ ঘোষকে ফোন করে খোঁজ নিলেন অমিত শাহ, নিন্দা জানিয়েছে বাম কংগ্রেসও! - VedasBD.com

Breaking

Wednesday, 1 July 2020

আক্রান্ত দিলীপ ঘোষকে ফোন করে খোঁজ নিলেন অমিত শাহ, নিন্দা জানিয়েছে বাম কংগ্রেসও!


বুধবার প্রাতর্ভ্রমণে বেরিয়ে আক্রান্ত হওয়ার পর দিলীপ ঘোষকে ফোন করে খোঁজ নিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। নিউটাউনে নিজের নয়া বাসভবনের পাশে এদিন চায়ের দোকানে চা খাওয়ার সময় দিলীপ ঘোষের ওপর তৃণমূলে আশ্রিত দুষ্কৃতীরা আক্রমণ করে বলে অভিযোগ। তার গাড়ির কাচ ভাঙচুরের পাশাপাশি চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর ও ফ্লেক্স ছিঁড়ে দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। শুধু তাই নয়, তার নিরাপত্তারক্ষী আক্রান্ত হয়েছেন বলে তিনি দাবি করেছেন।


সংবাদমাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হতেই একটু বেলার দিকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সরাসরি ফোন করেন দিলীপ ঘোষকে। তিনি জানতে চান পুরো বিষয়টি সম্পর্কে। নিউটাউনের কোচপুকুর এলাকার জোতভীম এলাকায় এদিন যে ঘটনা ঘটেছে, তার পুরোটাই তিনি জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে। এদিকে, দিলীপ ঘোষের ওপর হামলার ঘটনার নিন্দা করেছে রাজ্যের সমস্ত বিরোধী দল। কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় পরিষদীয় দলের নেতা অধীর চৌধুরী বলেছেন, মতাদর্শগত তফাত থাকতে পারে। তাই বলে একটি দলের রাজ্য সভাপতির ওপর হামলার ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না। রাজ্যের সিপিএমের পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী এই ঘটনার নিন্দা করেছেন। বলেছেন, এই হামলা মোটেও অভিপ্রেত নয়। বিজেপি’র ওপর হামলা করে তৃণমূল তাদের জমি আরও শক্ত করে দিচ্ছে এই রাজ্যে।

উল্লেখ্য, মাত্র কয়েকদিন হল আস্তানা বদল করে নিউটাউনে নতুন বাড়িতে এসে উঠেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বুধবার নিজের আবাসন লাগোয়া এলাকায় প্রাতর্ভ্রমণে বেরিয়ে আক্রান্ত হন তিনি। তৃণমূলে আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তার ওপর হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ তার। তার গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে, নিরাপত্তারক্ষীদের আক্রান্ত হতে হয়েছে। এছাড়াও দিলীপ ঘোষ জানান আগের বাড়িতে বাণিজ্যিক বিদ্যুৎ সংযোগ থাকায় বিলও আসছিল বেশি। তাই নিউটাউন এলাকায় এই আবাসনে উঠে এসেছেন দিলীপ ঘোষ।

বুধবার প্রাতর্ভ্রমণে বেরিয়ে আক্রান্ত হওয়ার পর দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘আমি নিউটাউন আসার পর থেকে দুই-তিনদিনের মধ্যেই তৃণমূলের কান গরম হয়ে গিয়েছে। এখন আমি যে বাড়িতে আছি, সেই বাড়ির মালিককে ধমকানো হচ্ছে। বলা হচ্ছে আপনি বাড়ির কাগজ দেখান। এনকেডিএ, হিডকো এমনকী লালবাজার থেকেও বাড়ি মালিককে ডেকে পাঠানো হয়েছে। আমাকে নিয়ে তৃণমূলের কী প্রবলেম আছে, তা আমি জানি না। বাজারে ঘুরতে দিচ্ছে না। দোকানে চা খেতে যেতে দিচ্ছে না। আমার সঙ্গে দেখা করতে এলে কর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছেন।

No comments:

Post a comment