মোদীর জাতীয়তাবাদ উগ্রতায় পরিণত হয়েছে, চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করায় পাল্টা আক্রমণ অভিষেকের! - VedasBD.com

Breaking

Tuesday, 30 June 2020

মোদীর জাতীয়তাবাদ উগ্রতায় পরিণত হয়েছে, চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করায় পাল্টা আক্রমণ অভিষেকের!


চিনকে শিক্ষা দিতে ডিজিটাল সার্জিকাল স্ট্রাইক শুরু করেছে মোদী সরকার। রাতারাতি নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে ৫৯টি চিনা অ্যাপ। তার মধ্যে টিকটক, উইচ্যাট, ক্যামস্ক্যানারের মতো অত্যন্ত জনপ্রিয় অ্যাপও রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এই সিদ্ধান্তকে উগ্র জাতিয়তাবাদ বলে আক্রমণ শানিয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেেসর যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী চিনকে জবাব দেওয়ার ক্ষেত্রে মোদী সরকারের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছিলেন। কিন্তু মোদীর এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি তৃণমূল।


সাংসদ সৌগত রায় টুইট করে অভিযোগ করেছেন কারোর ব্যক্তিগত মোবাইল থেকে এভাবে কোনও অ্যাপ বন্ধ করা যায় না। চিনে সার্জিকাল স্ট্রাইক না চালিয়ে মোদী সরকার ডিজিটাল স্ট্রাইক করার চেষ্টা করছেন। এর কোনও অর্থই হয় না। এটা বিজেপির উগ্র জাতীয়তাবাদ ছাড়া আর কিছুই নয় বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। চিনকে মোক্ষম শিক্ষা দিতে গতকাল রাতে ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে মোদী সরকার। কেন্দ্রের পক্ষ থেকে নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয় এই ৫৯টি চিনা অ্যাপ মোবাইল থেকে ডিলিট করতে হবে দেশবাসীকে।

তার মধ্যে টিকটক, উইচ্যাট, ক্যাম্প স্ক্যানারের মতো জনপ্রিয় অ্যাপও রয়েছে। ভারতে টিকটক অ্যাপের জনপ্রিয়কা সবচেয়ে বেশি। কেন্দ্রের তরফে অভিযোগ করা হয়েছিল চিন এই সব অ্যাপ থেকে ভারতীয়দের তথ্য চুরি করছে। তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটে অভিযোগ করেছেন, কয়েকদিন আগে পর্যন্ত লাদাখ সীমান্তে শহিদদের প্রতি শোকবার্তা এই সব চিনা অ্যাপে শেয়ার করেছিলেন কেন্দ্র। এখন সেই অ্যাপকেই নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে চাইছেন তিনি। এটা সরকারের দ্বিচারিতা ছাড়া আর কিছুই নয় বলে টুইটে মোদীকে আক্রমণ করেছেন তিনি। করোনা মোকাবিলায় পিএম কেয়ার্স ফান্ডে একাধিক চিনা সংস্থা থেকে অনুদান গ্রহন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এমনও অভিযোগ করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। 

No comments:

Post a comment