অমিত শাহের বক্তব্যে ক্ষিপ্ত তৃণমূল, শাহকে কড়া জবাব দিয়ে জানালেন সোনার বাংলা গড়বেন মমতায়! - VedasBD.com

Breaking

Tuesday, 9 June 2020

অমিত শাহের বক্তব্যে ক্ষিপ্ত তৃণমূল, শাহকে কড়া জবাব দিয়ে জানালেন সোনার বাংলা গড়বেন মমতায়!


বাংলার প্রথম ভার্চুয়াল সভাতে রাজ্যের শাসকদলকে বিঁধেছেন অমিত শাহ। ৬ বছরে মোদী সরকারের সাফল্যের চিত্র তুলে ধরে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে ব্যর্থতার অভিযোগ করেছেন অমিত শাহ। এতে ক্ষিপ্ত পুরো তৃণমূল। এনিয়ে কড়া জবাবও দিয়েছে রাজ্যের শাসক দল বলেছে সোনার বাংলা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই গড়বেন। সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের টুইটারে লেখা হয়েছে, যাঁর হাতে দেশের সার্বভৌমত্ব বিপন্ন, তিনি বাংলায় সংস্কৃতি পুনরুদ্ধারের কথা বলছেন! মনে রাখবেন, অমিত শাহের চোখের  সামনে লোকেরা বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছিল। সেই মূর্তি পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

.
এদিন সকালে তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটে বলেছিলেন, বাংলার মানুষ তো সঙ্কটের দিন অমিত শাহকে কিছু বলতে দেখেনি, তাই এদিন তিনি অন্তত একটা প্রশ্নের উত্তর দেবেন, 'চিন আমাদের ভূমির অংশ দখল করেছে কি না? এদিনের ভার্চুয়াল সভা থেকে সার্জিকাল স্ট্রাইকের কথা বললেও অমিত শাহ চিন প্রসঙ্গে একটা কথাও বলেননি। তাঁর সভা শেষে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটে বলেন, অমিত শাহজির ভাষণে বরাবর যে বাগাড়ম্বরপূর্ণ উক্তি থাকে, অথচ কোনও সারবত্তা থাকে না, এদিনও তার ব্যতিক্রম হয়নি। আর উনি যে বাংলা থেকে তৃণমূলকে বের করার স্বপ্নের কথা বললেন তার প্রেক্ষিতেই জানতে চাই, ভারতের ভূখণ্ড থেকে চিনকে কখন বের করা হবে?
.
এছাড়া এদিন টালিগঞ্জে সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূলের বিধায়ক অরূপ বিশ্বাস বলেন, ওরা মানুষের কাছে যেতে পারে না বলেই ভার্চুয়াল সভা করে। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানুষের সঙ্গেই রয়েছেন। এই ভার্চুয়াল সভা করতে যে হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করছে বিজেপি তা নোটবন্দির খেলা। এই টাকা তো পরিযায়ী শ্রমিকদের দিতে পারত। বিজেপি কাগুজে বাঘ, ভাষণসর্বস্ব বলেও মন্তব্য করেন তিনি। যা বলে তা করে, আর যা করে তা বলে না। যেমন নোটবন্দির সময় হয়েছিল। অমিত শাহ আগে জানান উনি গুজরাটের মন্ত্রী থাকার সময় কত দাঙ্গা, হিংসা হয়েছে। কত মানুষ মরেছে। সোনার বাংলা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই গড়বেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বেই বাংলা এগিয়ে চলেছে, চলবেও।

.
এছাড়াও এদিন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ নুসরত জাহান টুইটারে লিখেছেন, ২০১৪ সালে ভার্চুয়াল সভা থেকে ভাল দিনের কথা বলেছিল বিজেপি। তারপর একে একে হলো নোটবন্দি, মূল্যস্ফীতি, বেকারত্ব, এনআরসি, সিএএ, করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থতা, পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশা উপেক্ষা করা। বাংলার মানুষ আর পাতা ফাঁদে অন্ধভাবে পা জড়াবে না।

3 comments:

  1. We will wait for a strong govt. In w b.

    ReplyDelete
  2. আমরা নয় বছর ধরে সোনার বাংলার নামে জিহাদি বাংলা দেখে যাচ্ছি। এবার তুই বিদায় নে। অনেক হয়েছে তোদের উন্নতি আর নয় মমতা!

    ReplyDelete