বিয়ে করতেই হবে, দাবিতে মুর্শিদাবাদ থেকে প্রেমিকের বাড়ির সামনে এসে ধর্না মুসলিম যুবতীর! - VedasBD.com

Breaking

Saturday, 30 May 2020

বিয়ে করতেই হবে, দাবিতে মুর্শিদাবাদ থেকে প্রেমিকের বাড়ির সামনে এসে ধর্না মুসলিম যুবতীর!


বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দিনের পর দিন সহবাস করার পর বিয়ে করতে অস্বীকার করায় প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন প্রেমিকা। করোনা আবহের মাঝে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতার থানার কালুত্তক গ্রামে। সম্প্রতি সরকারি বাস পরিষেবা চালু হওয়ার পর সেই বাসেই শনিবার সাত সকালেই মুর্শিদাবাদের বহরমপুরের বাসিন্দা সামিরুল খাতুন তাঁর দাদাকে সঙ্গে নিয়ে তুহিন খানের বাড়ির সামনে এসে হাজির হন। প্রেমিকের বাড়ির সামনেই তিনি ধর্নায় বসে পড়েন। আর আচমকা প্রেমিকাকে তাঁর বাড়ির সামনে দেখেই হকচকিয়ে যাওয়া তুহিন খান গা ঢাকা দেন।


 এছাড়া এদিন সামিরুল খাতুন জানিয়েছেন,  প্রায় ৯ বছর আগে কলকাতায় তাঁর বিয়ে হয়। ৮ বছরের একটি কন্যাসন্তানও রয়েছে তাঁর। ২ বছর আগে কাজের সূত্রে তুহিন খান কলকাতায় গেলে তার সঙ্গে তার আলাপ হয়। আলাপ থেকে প্রেম। এরই মাঝে প্রায় ১ বছর আগে সামিরুলের স্বামী মারা যান। এদিকে, স্বামী জীবিত থাকাতেই তুহিন খানের সঙ্গে গভীর সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি। তাঁকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতিও দেন তুহিন খান। তার দাবি, স্বামী মারা যাওয়ার পর সেই দাবিকেই মান্যতা দিয়ে তাঁকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতিও দেন তুহিন খান।

কিন্তু লকডাউনের আগে থেকেই তুহিন তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখা বন্ধ করে। এমনকী ফোনের সিমকার্ডও বদলে ফেলে বলে অভিযোগ। তিনি জানিয়েছেন, তুহিন খানের সঙ্গে সম্পর্ক রাখায় তিনি তাঁর সঙ্গে শ্বশুরবাড়ির সম্পর্ক ছিন্ন হয়ে যায়। তার মেয়েকেও তারা আটকে রাখে। সামিরুল খাতুনের অভিযোগ, তুহিন খানের জন্যই তিনি সব হারিয়েছেন। এখন সেই তার সঙ্গে প্রতারণা করছে। তাই বাধ্য হয়েই তিনি হাজির হয়েছেন তুহিন খানের বাড়ি। তাঁর দাবি, তাঁকে স্ত্রী হিসাবে স্বীকার করতে হবে তুহিন খানকে। তবেই তিনি ধর্না থেকে উঠবেন। এদিকে, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এদিন সকাল থেকেই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াও কালুত্তক গ্রামে। সামিরুল খাতুন এব্যাপারে ভাতার থানাতেও অভিযোগ জানিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

No comments:

Post a comment