দিল্লির মসজিদে জমায়েতে থাকা সেই ৬ জনের মৃত্যু হল তেলেঙ্গানায়! - VedasBD.com

Breaking

Monday, 30 March 2020

দিল্লির মসজিদে জমায়েতে থাকা সেই ৬ জনের মৃত্যু হল তেলেঙ্গানায়!

দিল্লির মসজিদে জমায়েতে থাকা সেই ৬ জনের মৃত্যু হল তেলেঙ্গানায়!


দিল্লির নিজামুদ্দিন এলাকার ধর্মীয় সমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন এরা সকলেই। সেই ৬ জনের মৃত্যু হল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। সোমবার রাতেই এই সংবাদ দিয়েছেন খোদ তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও। গতকালই দিল্লির মসজিদে এক জমায়েতকে কেন্দ্র করে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। বড় রকমের সংক্রমণের আশঙ্কা পর্যন্ত করা হয়। এবার একসঙ্গে ৬ জনের মৃত্যু উদ্বেগ আরো বাড়াল।
.
এই মৃত্যু প্রসঙ্গে তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী জানান, এই ঘটনা খুব দুঃখজনক হলেও উদ্বেগ রয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। যারা যারা নিজামুদ্দিনের সভায় যোগ দিয়েছিলেন তাদের চিহ্নিত করার জন্য সরকার একটি বিশেষ দল গঠন করেছে। চন্দ্রশেখর রাও জানান, ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজনকে চিহ্নিত করেছে রাজ্য সরকার, তাদের হাসপাতালে আইসোলেশন রাখা হয়েছে। উল্লেখ্য, সম্প্রতি চন্দ্রশেখর রাও দাবি করেছিলেন তিনি তার রাজ্যকে খুব শীঘ্রই করোনা মুক্ত করবেন। তার এই দাবির পর এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজ্যের মানুষের মৃত্যু উৎকণ্ঠা আরো বাড়িয়ে দিল।
.
গতকালই দিল্লির একটি মসজিদে বড় জমায়েতকে কেন্দ্র করে এবার করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা ছড়াল কয়েক হাজার মানুষের মধ্যে। এই ঘটনার জেরে প্রায় ২০০০ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এই মসজিদে জমায়েতের জেরে অনেকের শরীরে সংক্রমণ ছড়াতে পারে। দেশে এই প্রথম এত জন করোনা সন্দেহভাজনদের একসঙ্গে নমুনা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। শঙ্কার বিষয় হচ্ছে, এই জমায়েতে উপস্থিত ছিলেন এমন এক ব্যক্তি তামিলনাড়ুতে মারা গেছেন,যদিও করোনায় তার মৃত্যু হয়েছে কি-না তা নিশ্চিত নয়। ফলে ২০০০ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানোর পাশাপাশি নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে ১৭৫ জনের। এদের অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন বলে স্থানীয়রা মনে করছেন।
.
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে চলতি মাসের শুরুতে দিল্লিতে সমস্ত ধরনের বড় জমায়েত নিষিদ্ধ করে রাজ্য সরকার। কোনও ধর্মীয়, সামাজিক, সাংস্কৃতিক বা রাজনৈতিক সমাবেশে একসঙ্গে ৫০ জনের বেশি জমায়েত করা যাবে না বলে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তার পরেও চলতি মাসে দিল্লির নিজামুদ্দিন অঞ্চলে ওই ধর্মীয় সভার আয়োজন করা হয়েছিল।

No comments:

Post a comment