লকডাউন সফল করতে পুলিশ শুধু লাঠি চালায়নি, অসহায়দের পেটপুরে খাইয়েছে! - VedasBD.com

Breaking

Thursday, 26 March 2020

লকডাউন সফল করতে পুলিশ শুধু লাঠি চালায়নি, অসহায়দের পেটপুরে খাইয়েছে!

লকডাউন সফল করতে পুলিশ শুধু লাঠি চালায়নি, অসহায়দের পেটপুরে খাইয়েছে!


লকডাউন সফল করতে মন চাইলেও হাতে লাঠি নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ কড়া পদক্ষেপ করেছে। কথা না মানলে লাঠির আঘাত জুটেছে। বুধবার এই ছবি দেখা যায় গোটা বাংলা জুড়ে। বিপদের কথা ভেবে বহু মানুষ পলিশের এই ভূমিকাকে সাধুবাদ জানালেও সমালোচনা করার লোকের অভাব ছিল না। লকডাউনে পুলিশ শুধু লাঠি চালায়নি, অসহায় ও পথশিশুদের পেট ভবে খাওয়াল। বৃহস্পতিবার পুলিশের এমন মানবিক মুখ দেখা গেল পূর্ব বর্ধমানের কালনায়। কড়া হতেই পুলিশকে যারা সমালোচনা করছিল, তারা এমন ভূমিকায় পুলিশকে দেখে খুশি।
.
লকডাউন হওয়ায় এখন কার্যত সুনসান গোটা কালনা শহর। বন্ধ দোকানপাট। অর্থ থাকলেও কিনে খেতে পারছেন না দূরদূরান্ত থেকে আসা চিকিৎসাধীন কালনা মহকুমা হাসপাতালের রোগীর আত্মীয়রা। তাদের কথা ভেবেই দুপুরের খাওয়ার ব্যবস্থা করল কালনা রেল পুলিশ ও কালনা থানার পুলিশ। অন্যদিকে, পথশিশুদের অম্বিকা কালনা রেল স্টেশন চত্বরে পাত পেড়ে খাওয়াল পুলিশ। লকডাউনের এই সময়ে দিন আনা দিন খাওয়া গরিব মানুষের কথা ভেবেই এমন পদক্ষেপ নিলেন পুলিশকর্মীরা।
.
উলেখ্য, লকডাউনের প্রথম দিন গোটা রাজ্যে পুলিশ বেশ কড়া ছিল। বাকি দিনগুলোতে বেয়াদব জনগণকে বাগে আনতে পুলিশকে আরও কঠোর হতে হবে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। কিন্তু, তাঁর মধ্যে পুলিশের ভূমিকা বদলে গেল। ‘সক্রিয়’ পুলিশ বৃহস্পতিবার থেকে অনেকটাই নরম হয়েছে। লকডাউন না  মেনে পথে বের হওয়া লোকজনকে ‘বাবা-বাছা’ বোঝাচ্ছে পুলিশ।
.
শুধু তাই নয়, পথে বের হওয়া লোকজনকে বাড়িমুখো করতে হাতজোড় করতে হচ্ছে পুলিশকে। এদিন সকালে সেই ছবি দেখা যায় দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙড়ের পোলেরহাটে। পুলিশকে দু’হাত জোড় করে বলতে শোনা যায়, দয়া করে আপনারা বিনা কারণে রাস্তায় বের হবেন না। যদি একান্তই বের হতে হয়, তা হলে অন্তত মাস্ক পরে বের হন।

No comments:

Post a comment