পরিমাণ না জানিয়ে করোনা মোকাবিলায় এক কোটি টাকা আর্থিক অনুদান দিলেন অনুষ্কা, রাজকুমার, কার্তিক! - VedasBD.com

Breaking

Monday, 30 March 2020

পরিমাণ না জানিয়ে করোনা মোকাবিলায় এক কোটি টাকা আর্থিক অনুদান দিলেন অনুষ্কা, রাজকুমার, কার্তিক!

পরিমাণ না জানিয়ে করোনা মোকাবিলায় এক কোটি টাকা আর্থিক অনুদান দিলেন অনুষ্কা, রাজকুমার, কার্তিক!


করোনা মোকাবিলায় প্রধামন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ২৫ কোটি টাকার আর্থিক অনুদান দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন অক্ষয় কুমার। তারপরেই একে একে বরুণ ধাওয়ান, কার্তিক আরিয়ানও এই রোগের মোকাবিলায় আর্থিক অনুদান দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ত্রাণ তহবিলে। বরুণ ও অক্ষয় আর্থিক অনুদানের প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরই কার্তিক এদিন সকালেই ১ কোটি টাকা আর্থিক অনুদান দিয়ে টুইট করে জানিয়েছেন , ‘ এই সময় প্রয়োজন, দেশবাসী হিসাবে একসঙ্গে উঠে দাঁড়ানোর, আজকে আমি যা হয়েছি, যা অর্থ অর্জন করেছি, সেটা একমাত্র ভারতের মানুষের জন্য। আমাদের সকলের জন্য পিএম কেয়ার তহবিলে আমি এক কোটি টাকা দিলাম। আমি আমার সহনাগরিকদের সাধ্যমতো সাহায্য করার অনুরোধ করছি।’
.
অন্যান্য অভিনেতারা যখন করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলে আর্থিক অনুদানের পরিমাণ জানিয়ে দান করছেন ঠিক তখনই কিছুটা উল্টে পথে হেঁটেছেন অনুষ্কা শর্মা ও রাজকুমার রাও। ত্রাণ তহবিলে অনুদান দিলেও অর্থের পরিমাণ গোপন রেখে এক আলাদা নজির গড়েছেন দুই তারকা। এই বিষয়ে বিরাট পত্নী অনুষ্কা জানিয়েছেন , ‘বিরাট এবং আমি পিএম কেয়ার তহবিলে এবং মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে সাহায্যে করার প্রতিশ্রুতি দিলাম। অসংখ্য মানুষের দুর্দশা দেখে আমাদের হৃদয় ভেঙে পড়েছে। আমরা আশা করি আমাদের এই সাহায্য, কোনও না কোনও ভাবে আমাদের সহ নাগরিকদের বেদনা কমাতে সাহায্যে করবে।’
.
প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে আর্থিক অনুদান দেওয়ার পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থা জ্যোম্যাটো র ফিডিং ইন্ডিয়াতেও সাহায্যে করেছেন অভিনেতা রাজকুমার রাও। এই বিষয়ে রাজকুমার জানিয়েছেন, ‘এখন আমাদের একসঙ্গে দাঁড়াতে হবে এবং করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াইয়ে প্রশাসনকে সাহায্যে করতে হবে। আমি আমার কাজটুকু করেছি, যাদের প্রয়োজন রয়েছে সেইসব পরিবারকে সাহায্যে করার জন্য প্রধানমন্ত্রী এবং মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ও জ্যম্যাটো ফিডিং ইন্ডিয়াতে আমি অর্থ দান করেছি। আপনাদের যার যা ক্ষমতা সেভাবে সহায়তা করুন, দেশের এখন আমাদের প্রয়োজন, জয় হিন্দ।’

No comments:

Post a comment