মোদী থাকতে কাশ্মীর নিয়ে কোন আশা নেই আমাদের! স্বীকারোক্তি পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের - VedasBD.com

Breaking

Monday, 24 February 2020

মোদী থাকতে কাশ্মীর নিয়ে কোন আশা নেই আমাদের! স্বীকারোক্তি পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের

মোদী থাকতে কাশ্মীর নিয়ে কোন আশা নেই আমাদের! স্বীকারোক্তি পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের



পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে পুরোপুরি ভাবে হার মেনেছেন। পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান একটি সাক্ষাৎকারে বলেন, ভারতে মোদী সরকার  যতদিন ক্ষমতায় আছে, ততদিন কাশ্মীর সমস্যা সমাধান নিয়ে কোন  আশা নেই।
.
ইমরান খান বলেন, মোদী সরকারের কার্যকালে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান হবে না। কারণ রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ আর নরেন্দ্র মোদীর সরকার হিটলারের বিচারধার অনুসরণ করছে।বেলজিয়ামের একটি টিভি নেটওয়ার্কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেন, এই সরকারের উপর আমার কোন আশা নেই, তবে ভবিষ্যতে একটি মজবুত ভারতীয় সরকারের নেতৃত্বে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান অবশ্যই হবে। ইমরান খান বলেন, ভারতীয় নেতা জওহর লাল নেহরু স্বাধীনতা আন্দোলনের সময় কাশ্মীরিদের আত্ম-সংকল্পের অধিকারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। 
.
কিন্তু ভারত এখন আর কাশ্মীরিদের এই অধিকার দেয়না, কারণ ভারত সরকার জানে, কাশ্মীরিদের এই অধিকার দিলে তাঁরা পাকিস্তানকে বেছে নেবে কারণ কাশ্মীর মুসলিম প্রধান এলাকা।
.
পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান আরো বলেন, আমার মনে হয় ভারতে যদি মজবুত আর স্পষ্ট চিন্তাভাবনার সরকার আসে তাহলে এই সমস্যার সমাধান হবে। পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপাতত ভারতের প্রধান সমস্যা হল বর্তমান সরকার আরএসএস আর হিটলারের এর বিচারধারাতে প্রেরিত। উনি বলেন, আরএসএসই বর্তমান ভারত সরকার চালাচ্ছে। তাঁরা হিটালের নাৎসি মনোভাব পালন করে। যেহেতু কাশ্মীরিরা সবাই মুসলিম, তাই তাঁদের কয়েদি বানিয়ে রাখা হচ্ছে। তাঁদের কোন অধিকার দেওয়া হচ্ছে না। 

.
জবাবে রামমাধব ছাত্র সংসদের প্রতিনিধিদের সম্বোধিত করার সময় বলেন, আমরা অখণ্ড ভারত গড়ার উদ্দেশ্যে কাজ করছি। আর জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়া হল আমাদের অখণ্ড ভারত গড়ার লক্ষ্যে প্রথম পদক্ষেপ।

.
ছাত্র সংসদের এক প্রতিনিধি রামমাধবকে যখন জিজ্ঞাসা করেন ‘অখণ্ড ভারতের স্বপ্ন কবে পূরণ হবে?” তখন বিজেপির রাষ্ট্রীয় মহাসচিব রামমাধব বলেন এই স্বপ্ন কয়েকটি পর্যায়ে পূরণ হবে। সর্বপ্রথম হল, জম্মু কাশ্মীর একটি সীমার মধ্যে আবধ্য ছিল, কিন্তু এখন সম্পূর্ণ ভাবে সেই সীমা উঠে গেছে, আর ভারতে মুখ্যধারার সাথে মিশে গেছে জম্মু কাশ্মীর।
.
বিজেপির নেতা আরো বলেন, আমাদের আগামী লক্ষ্য হল যেই ভারতীয় জমি পাকিস্তান দখল করে রেখেছে সেটা ফেরত নেওয়া। উনি বলেন, পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে ভারতে ফিরিয়ে আনার প্রস্তাব ১৯৯৪ সালে সংসদে পেশ হয়েছিল। আপনাদের জানিয়ে দিই, জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার পর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ সংসদে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, দরকার পড়লে প্রাণ পর্যন্ত দেব, কিন্তু পিওকে ভারতের অন্তর্ভুক্ত করে ছাড়ব।


No comments:

Post a Comment