যজুর্বেদ, ঋগবেদ নিয়ে ইসলামের জ্বালিয়াত মিথ্যা অপ্রচারের জবাব - VedasBD.com

Breaking

Saturday, 27 October 2018

যজুর্বেদ, ঋগবেদ নিয়ে ইসলামের জ্বালিয়াত মিথ্যা অপ্রচারের জবাব

অপ্রচারকারীর দাবি :- হিন্দু ধর্মগ্রন্থে পিতা+ কন্যার বিবাহ, অবৈধ যৌন সম্ভোগ অনুমতি দেয় ঈশ্বর। (ঋগবেদ ১০ মন্ডল ৬১ সুক্ত( ৫-৮) মন্ত্র।)
------------------------------------------------------------------
.
জবাব:-  আজকাল অনলাইনে কিছু তমোনিষ্ঠ পাপবুদ্ধিদের আধিক্য
বৃদ্ধি পেয়েছে। বেদের মহত্ততার হানি ঘটানোর জন্য
এদের প্রচেষ্টা। যদিও বেদের মতো উচ্চ আধ্যাত্মিক
জ্ঞান এসব পাপ বুদ্ধিদের মস্তিষ্কে নেই। যার ফলে এরা
নিজেদের অশ্লিলপূর্ণ জীবনের নোংরা জ্ঞান দিয়ে বেদ বিচার করতে আরম্ভ করেছে।যার দরুন এরা শুধু নিজেদেরই নয় নিজেদের অস্তিত্বকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।
.
তাদের দাবি মতে ঋগ্বেদ ১০/৬১/৫-৮ নং মন্ত্রে নাকি পিতা এবং কন্যার মধ্যে অশ্লীল সম্পর্কের কথা অাছে।
- কিন্তু তাদের দেয়া তথ্য অনুসারে এরুপ কোন কথা পাইনি। তাদের দেয়া তথ্যগুলো নিচে খন্ডানো হলো :-

√√ঋগ্বেদ ১০/৬১/৫--
प्रथिष्ट यस्य वीरकर्ममिष्णदनुष्ठितं नु
नर्यो अपौहत् ।
पुनस्तदा वृहति यत्कनाया
दुहितुरा अनुभृतमनर्वा ॥

অনুবাদ
 রাষ্ট্রপতি কে নতুন বা অনর্বা হওয়া চাই। যে বিধানের নির্মাণ করে সভা বা সমিতি দ্বারা রাষ্ট্র এর সঞ্চালন করবে। সভা কে রাষ্ট্রপতির শক্তি প্রাপ্ত হয়ে যায়। নিশ্চিত (সময়) অবদি পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি সভা থেকে শক্তি কে ফেরৎ নিয়ে, নতুন নির্বাচনের জন্য সভা ভঙ্গ করে দেই।
(অনুবাদ--- ভাষ্যকার হরিশরণ সিদ্ধান্তলঙ্কার এর হিন্দি থেকে সরাসরি অনূদিত)

.

√√ঋগ্বেদ ১০/৬১/৬--
मध्या यत्कर्त्वमभवदभीके कामं कृण्वाने
पितरि युवत्याम् ।
मनानग्रेतो
जहतुर्वियन्ता सानौ निषिक्तं सुकृतस्य योनौ ॥
.
অনুবাদ
 নির্বাচন ঠিক সময়ে হয়ে যাওয়া চাই। সভার কোনো কার্য অসম্পূর্ণ থাকে তবে, সভা ভঙ্গ হয়ে নতুন নির্বাচন হয়ে যাওয়া চাই, নতুন সভা সেই কার্য কে পূর্ণ করে নেবে।
( ভাষ্যকার হরিশরণ সিদ্ধান্তলঙ্কার এর হিন্দি থেকে সরাসরি অনূদিত)

.
✓✓ঋগ্বেদ ১০/৬১/৭
पिता यत्स्वां दुहितरमधिष्कन्क्ष्मया रेतः
संजग्मानो नि षिञ्चत् ।
स्वाध्योऽजनयन्ब्रह्म देवा वास्तोष्पतिं
व्रतपां निरतक्षन् ॥
.
অনুবাদ
রাষ্ট্রপতি সভার সভ্যকে নির্বাচন করে। নির্বাচিত হওয়ার পরে  তারা রাষ্ট্রপতিকে নির্বাচন করে। রাষ্ট্রপতির মুখ্য কার্য রাষ্ট্র রক্ষার নিয়ম কে পালন করানো।
(অনুবাদ--- ভাষ্যকার হরিশরণ সিদ্ধান্তলঙ্কার এর হিন্দি থেকে সরাসরি অনূদিত)


অপ্রচারকারির দাবি:-
→অনলাইনে কিছু শিক্ষিত নাস্তিকদের দেখা যাচ্ছে। এনারা অনলাইনে অনেক পান্ডিত্য দেখাতে গিয়ে কিছু মায়াকান্না করে থাকে। তাদের নতুন উদ্ভাবন হলো পবিত্র বেদে নাকি অশ্লীলতা রয়েছে। এনারা পোস্টের শুরুতে কিছু কথা বলে, যেমন ধরুন হিন্দু ধর্মগ্রন্থে বেদে ভয়াবহ অশ্লীলতা,যৌনতা খুঁজে পাই যার কাউন্টার জবাব দিতেও লজ্জা লাগে →↓↓
.
১✓✓এইসব ইসলাম নাস্তিকরা এতোটাই মূর্খ যে নিজেদেরকে খুবই জ্ঞানী ভেবে থাকে মনে করে বেদ তারা একাই পড়েছে আর কেউ পড়েনি
.
তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী খন্ডন করা হলো নিম্নে---
.
  যজুর্বেদ ২৩/২০- ঈশ্বর ঘোড়া দ্বারা যৌন কর্ম ও স্ত্রী যোনীপথে বীর্যপাত করতে বলে।
_____________________________
জবাব:- উক্ত মন্ত্রে এরুপ কোন কথা নেই, ভূলভাল উৎস থেকে পড়লে সেটা দায় কি পবিত্র বেদের নাকি বক্তার???
.
 মন্ত্রটি নিম্নরুপ---
→ताऽउभौ चतुरः पदः सम्प्र सारयाव स्वर्गे लोके।
→प्रोर्णुवाथां वृषा वाजी रेतोधा रेतो दधातु ॥
.
অনুবাদ
 প্রভুর সাথে মিলিত  (একাত্মা) হয়েই প্রভুর কৃপাতেই ধর্ম, অর্থ, কাম এবং মোক্ষ এই চার পুরুষার্থ সিদ্ধ করো এবং এই উপায়তেই নিজেকে স্বর্গলোকে স্থাপিত করো ।। প্রভু যেন রাজা প্রজা সকলকে শক্তিশালী বানান ।।
(ভাষ্যকার হরিশরণ সিদ্ধান্তলঙ্কার)
.
উক্ত মন্ত্রে মনুষ্যকে প্রভুর সাথে একাত্মা হয়ে  চার পুরুষার্থ সিদ্ধ করার কথা বলা হচ্ছে।
কোন খারাপ কিছুকে নির্দেশ করছেনা।

.
২✓✓  যজুর্বেদ- ২৩/২১- ঘোড়ার বীর্য নাকি রমনীগেনর জীবন ও ভোজন স্বরুপ।
_______________________________
জবাব:- ওদের দেয়া যজুর্বেদ ২৩/২১ মন্ত্রটির প্রকৃত সত্য নিম্নরুপ:-

→उत्सक्थ्या ऽ अव गुदं धेहि सम् अञ्जिं चारया वृषन् ।
→य स्त्रीणां जीवभोजनः॥

অনুবাদ
রাজা রাষ্ট্রে ব্যভিচার থামানোর জন্য বিলাসী ( ব্যাভিচারী, চরিত্রহীন ) পুরুষকে উল্টো করে ঝুলিয়ে শাস্তি দেবেন তথা রাষ্ট্রে ব্যাভিচারের হানি এবং ক্ষতি ও চরিত্র সংযমের লাভ ও সমাজে চরিত্র সংযমের গুরুত্ব প্রজাদের মধ্যে প্রচার করে বোঝাবেন এবং এই বিষয়ে জ্ঞানের প্রচার রাষ্ট্রে করাবেন , যাতে রাজ্যের প্রজাদের মনোবৃত্তিতে কখনো ব্যাভিচারের চিন্তা না আসে এবং যারা ব্যাভিচারের সঙ্গে যুক্ত, তাদের ও মনোবৃত্তিতে যাতে পরিবর্তন ঘটানো যায় ।।
(ভাষ্যকার হরিশরণ সিদ্ধান্তলঙ্কার)
.
 এখানে মূলত ব্যভিচার এর শাস্তি এবং মানুষকে সৎ পথে আনার জন্য রাজাকে নির্দেশ দেয়া হচ্ছে সকলকে যাতে ব্যভিচার থেকে দূরে রাখতে পারে। মিথ্যাচারীদের দেয়া কথা ছিটে ফোটাও নেই।

.
৩✓✓ যজুর্বেদ- ২৩/২৮-হায় হায়! ! স্থূল ( চওড়া,মোটা) শিশ্ন ( পুরুষাংগ বা নুনু)
পেয়ে নাকি স্ত্রী যোনী কাপে!!!
_____________________________
জবাব:- সকলের মনে হতে পারে এরুপ অপপ্রচার করে কেমন করে?
এগুলো ওদের নিম্ন মানসিকতার বহিঃপ্রকাশ।
মন্ত্রটি নিম্নরুপ---
→यद् अस्या ऽ अहुभेद्याः कृधु स्थूलम् उपातसत् ।
→मुष्काविदस्या ऽ एजतो गोशफे शकुलाव् इव॥
.
অনুবাদ
রাজা রাষ্ট্রে দন্ড ব্যবস্থাকে এই প্রকারে সুব্যবস্থিত করে রাখবেন , যাতে চোর-ডাকাত সেই দন্ডবিধির ভয়ে কম্পিত হয়ে এই চুরি-ডাকাতির পথ ই ছেড়ে দেয়।
(ভাষ্যকার হরিশরণ সিদ্ধান্তলঙ্কার)
.
 উক্ত মন্ত্রে রাজার প্রতি নির্দেশ দেয়া হচ্ছে যে চুরি ডাকাতির শাস্তি এমন ভাবে করতে হবে যাতে করে শাস্তির ভয়ে চুরি ডাকাতি করা বন্ধ হয়ে যায়।

.

৪✓✓  ২৩/২৯-দেব গন ক্রীড়া করলে নারীর উরু ও দেখা যায়।
____________________________________
জবাব :-  উক্ত মন্ত্রটি নিম্নে দেওয়া হল:-

देवासो ललामगुं प्र विष्टीमिनम् आविषुः ।
सक्थ्ना देदिश्यते नारी सत्यस्याक्षिभुवो यथा ॥
.
অনুবাদ
 যখন রাজাকে বিদ্বান ব্যাক্তিগণ ব্যাপ্ত করে থাকেন, তখনই কোনো রাজসভা রাজ্যের প্রজাদের সঠিক সেবা করতে পারে ।।
(ভাষ্যকার হরিশরণদ্ধান্তলঙ্কার)
.
উক্ত মন্ত্রটি মূলত রাজার রাজসভায় বিজ্ঞ ব্যক্তিদের নিযুক্ত করার কথা বলা হচ্ছে, যাতে করে রাজ্যের সব লোক সঠিক সেবা পেতে পারে।

.

৫✓✓ যজুর্বেদ- ২৩/৩১- শুদ্রগন যদি বৈশ্য রমনীতে আসক্তি হয়, তবে বৈশ্য ক্লেশ অনুভব করবে,সুখী হবে।
_______________________________________
জবাব:- উক্ত মন্ত্রটি নিম্নে দেওয়া হল:-

→यद्धरिणो यवम् अत्ति न पुष्टं बहु मन्यते ।
→शूद्रो यद् अर्यायै जारो न पोषम् अनु मन्यते ॥
.
অনুবাদ
 রাজা যদি বিলাসী হয়ে যায় , তবে সেই রাজা ঐ শুদ্র ব্যাক্তির সমান হয়, যে শুদ্র ব্যাক্তি এক উপপত্নীর প্রেমী হয়ে বংশবৃদ্ধির ধারণাকে কোনো তাৎপর্য দেয় না ।।
(অনুবাদ- হরিশরণ সিদ্ধান্তলঙ্কার)
.
 এখানে মূলত রাজার বিলাসীতাকে লক্ষ্য করে বলা হয়েছে। অর্থাৎ রাজা যদি বিলাসী হয় তবে সে শূদ্র ব্যক্তির ব্যভিচারের সমমনা হয়ে যাবে।



ওঁম শান্তি শান্তি শান্তি।।।





No comments:

Post a Comment